মা ইলিশ ধরা বন্ধের জন্য ভিন্ন রকম উদ্যোগ

EkattorPost Desk

মোঃ আল-আমিন, শরীয়তপুর

১৪ অক্টোবর ২০২২, ০২:৩৮ এএম


মা ইলিশ ধরা বন্ধের জন্য ভিন্ন রকম উদ্যোগ

ছবিঃ একাত্তর পোস্ট

একাত্তর পোস্ট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

শরীয়তপুরে জাজিরা উপজেলার কুন্ডেরচর, বিলাসপুর, জাজিরা, পালেরচর এবং বড়কান্দি ও পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়ন সহ মোট ৬টি ইউনিয়ন নিয়ে পদ্মা নদী অবস্থিত।

যার ফলে জাজিরার এই ছয়টি ইউনিয়নের অসংখ্য জেলেরা পদ্মা নদীতে মাছ স্বীকার করে জীবিকা নির্বাহ করে।

এমতাবস্থায় ইলিশ মাছের প্রধান প্রজনন মৌসুম (৭-২৮ই অক্টোবর) সরকার ঘোষিত মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান-২০২২ এর উপলক্ষে টানা ২২ দিন জাজিরা উপজেলা জেলেদেরকে ইলিশ মাছ ধরা থেকে বিরত রাখতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামরুল হাসান সোহেল বিনোদন মূলক একটি ব্যাতিক্রমধর্মী আয়োজন করেছেন।

স্থানীয় প্রতিটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের সহযোগিতায় জাজিরা উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মৎস্য দপ্তরের আয়োজনে ধারাবাহিকভাবে একেক দিন একেকটি ইউনিয়নে অবস্থিত পদ্মা নদীর পাড়ের ঘাটগুলোতে বিকেলে জেলেদের মধ্যে ঐতিহ্যবাহী জাতীয় কাবাডি খেলাসহ বিভিন্ন খেলাধুলা, সন্ধ্যায় স্থানীয় বাউলদের নিয়ে সঙ্গীতানুষ্ঠান ও সবশেষে রাতে সবজি খিচুরি দিয়ে জেলেদের সহ স্থানীয়দেরকে আপ্যায়নের মাধ্যমে ইলিশ মাছ ধরা থেকে জেলেদের বিরত রাখার এক ভিন্নধর্মী উদ্যোগ নিয়েছেন জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামরুল হাসান সোহেল।

এ সময়ে জেলেরা ও অভিযানে অংশগ্রহণকারী সদস্যরা সহ স্থানীয় জনসাধারণ ও জনপ্রতিনিধিগণ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে উক্ত আয়োজনগুলোতে অংশগ্রহণ করে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন।

যার ফলে জাজিরায় মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে এ বছর জেলেরা ইলিশ মাছ ধরা থেকে বিরত থাকছেন, বলে আশা ব্যক্ত করেন জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুল হাসান সোহেল।

তিনি আরো বলেন, তবে কিছু কিছু জেলেরা নদীতে মাছ ধরার চেষ্টা করলেও উপজেলা প্রশাসনের তৎপরতায় তা সম্ভব হচ্ছে না।

Link copied