পু‌লি‌শ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিকঃ আটক ১৬

EkattorPost Desk

সাজ্জাতুল ইসলাম সাজ্জাত, স্টাফ রি‌র্পোটার

২৩ নভেম্বর ২০২২, ০১:১৬ এএম


পু‌লি‌শ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিকঃ আটক ১৬

ছবিঃ একাত্তর পোস্ট

একাত্তর পোস্ট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

শেরপুরে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ৬-৭ পুলিশসহ কমপক্ষে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে। 

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শটগানের গুলি ও টিয়ারশেল ছুড়ে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১৬ জনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার( ২২ নভেম্বর) বি‌কে‌লে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী, বিএনপি নেতাকর্মী ও পুলিশ সূত্রে  জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছাত্রদল নেতা নয়ন মিয়া হত্যার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মঙ্গলবার বি‌কে‌লে শেরপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি মাহমুদুল হক রুবেলের গৃর্দানারায়ণপুরের বাসভবনের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। বিক্ষোভ মিছিলটি রঘুনাথবাজার কালীমন্দির মোড়ে এলে পুলিশ মিছিলে বাধা দেয়।

এ সময় বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের কথাকাটাকাটি হয়। এ পর্যায়ে পুলিশ লাঠিচার্জ করে এবং কয়েকজন নেতাকর্মীকে আটক করে। একপর্যায়ে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হলে শহরের রঘুনাথ বাজার ও গৃদানারায়নপুর এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। রাস্তায় যানবাহন চলাচল ও দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

বিএনপি ও অঙ্গ দলের নেতকার্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারশেল ও শটগানের গুলি ছুড়ে। বিএনপি নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে এদিক সেদিক ছুটতে থাকেন। পুলিশ ১৬ নেতাকর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এদিকে লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল, ইটপাটকেলের আঘাতে এবং দৌড়ে নিরাপদ স্থানে যাওয়ার সময় পড়ে গিয়ে পথচারী, বিএনপির নেতাকর্মী ও পুলিশসহ প্রায় অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন।

জেলা বিএনপির সভাপতি মাহমুদুল হক রুবেল জানান, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ অতি উৎসাহিত হয়ে অহেতুক লাঠিচার্জ কাঁদানো গ্যাস ও গুলি চালিয়েছে। অনেক নেতাকর্মীকে আটক করেছে। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে তিনি দাবি করেন তিনি।

শেরপুরের পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান জানান, বিএনপির নেতাকর্মীরা নাশকতার পরিকল্পনা করে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১০১ রাউন্ড শটগানের গুলি ও ২২ রাউন্ড কাঁদানো গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় ৭-৬ জন পুলিশ আহত হয়েছেন। আহতরা হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১৬ জনকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সম্পর্কিত

আরও পড়ুন

Link copied